ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

ফুটবল

ডাচ নৈপূণ্যে ‘টিকি-টাকা’র যবনিকা

এম আব্দুল্লাহ আল মামুন খান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০৩০ ঘণ্টা, জুন ১৯, ২০১৪
ডাচ নৈপূণ্যে ‘টিকি-টাকা’র যবনিকা ছবি: সংগৃহীত

ময়মনসিংহ: টানা ৬৪ বছর পর ব্রাজিলে ফেরা বিশ্বকাপে ২০১০ সালের চ্যাম্পিয়ন স্পেনের সামনে ছিল টানা দুইবার বিশ্বকাপ জেতার হাতছানি। গতবারের বিশ্ব সেরার মুকুটের নেপথ্যে ছিল ছোট ছোট পাসে খেলা স্প্যানিশ ফুটবল কৌশল ‘টিকি-টাকা’।



পাসিং ফুটবলের পসরা সাজিয়ে টানা দুইবার ২০০৮ ও ২০১০ ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতলেও ব্রাজিলের মাটিতে কাজে আসেনি এ কৌশল।

শিরোপা ধরে রাখতে তাই ভিসেন্তে দেল বস্ক-ক্যাসিয়াসের দল এবারো পেলের দেশ ব্রাজিল বিশ্বকাপ ফুটবলের ২০তম আসরে সেই টিকি-টাকার কৌশলই অনুসরণ করেছিল।

ডাচদের সঙ্গে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের ভূমিধস হারের পর এ কৌশল নিয়ে শুরু হয় ধুম সমালোচনা।

স্বয়ং ফুটবল ঈশ্বর ম্যারাডোনাও বলেছিলেন, এক নেদারল্যান্ডসই টিকিটাকার অপমৃত্যু ঘটিয়েছে। ছোট ছোট পাসে প্রতিপক্ষের বক্সে গিয়ে আক্রমণের ঢেউ ওঠানোর দিন আর নেই।

সবশেষ ফিফা র‌্যাঙ্কিং এ ১৪ নম্বরে থাকা চিলির সঙ্গে ২-০ গোলে হারের পর সত্যিই আনুষ্ঠানিকভাবে যবনিকাপাত ঘটলো ছন্দময় টিকি-টাকা’র।

ফুটবল বোদ্ধারা মনে করেন, প্রতিবার এক কৌশল অনুসরণ করে ফুটবলের মহারণে টেকা যায় না। অন্তত বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন স্পেনের লজ্জাজনকভাবে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেওয়ার পর টিকিটাকা ফুটবল দর্শন সম্ভবত হিমাগারে-ই ঠাঁই নেবে!

সেই মারাকানাতেই হার:
১৯৫০ সালে ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে ঐতিহাসিক স্তাদিও দো মারাকানা স্টেডিয়ামেই প্রথম মুখোমুখি হয়েছিল ইউরোপের দেশ স্পেন আর লাতিন আমেরিকার চিলি। সেই ম্যাচে চিলি হেরেছিল ২-০ গোলে।

২০১০ সালের কনফেডারেশন কাপ ফুটবলে সেই মারাকানাই স্প্যানিশদের জন্য হয়ে উঠে অতৃপ্তির এক নাম। সেবার তারা ছন্দময় ফুটবলের দেশ ব্রাজিলের কাছে হেরে যায় ৩-০ গোলে।

মূলত বাংলাদেশ সময় বুধবার দিনগত রাতে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে সেই মারাকানা স্টেডিয়ামেই ৬৪ বছর পর ওই ২-০ গোলেই স্পেনকে হারিয়ে মধুর প্রতিশোধ নিলো চিলি।

ব্যর্থ ক্যাসিয়াস:

চলতি ফিফা র‌্যাঙ্কিং এ এক নম্বরে থাকা দেশ স্পেনের অধিনায়ক ইকার ক্যাসিয়াস। টানা ১৪ বছর যাবত আগলে রেখেছেন স্পেনের গোলপোস্ট। গতবার অসাধারণ নৈপুণ্য প্রদর্শন করে দক্ষিণ আফ্রিকায় নিজের দেশকে বিশ্বকাপ জেতালেও এবার পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদে খেলা অভিজ্ঞ এ গোলরক্ষক।

মাত্র দুই ম্যাচেই তিনি হজম করেছেন ৭ গোল! বিশেষ করে তার ভুলের কারণেই ডাচদের সঙ্গে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের রীতিমতো লজ্জায় ডুবতে হয়েছিল।  

বাংলাদেশ সময়: ১০১৬ ঘণ্টা, জুন ১৯, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa