ঢাকা, বুধবার, ৭ ফাল্গুন ১৪৩০, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ শাবান ১৪৪৫

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

ছাড়ের পরও দুই চেয়ারের দাম ৬৩ হাজার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৫৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২৩
ছাড়ের পরও দুই চেয়ারের দাম ৬৩ হাজার ...

চট্টগ্রাম: বাংলাদেশ ফার্নিচার শিল্প মালিক সমিতি চট্টগ্রাম বিভাগের আয়োজনে নগরের জিইসি কনভেনশন সেন্টারে চলমান ১২তম ফার্নিচার মেলায় অতিরিক্ত দামের কারণে নাখোশ ক্রেতারা।

১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া মেলায় ক্রেতার তেমন উপস্থিতি নেই।

আয়োজকরা বিশেষ ছাড় দেওয়ার কথা বললেও বিভিন্ন ফার্নিচারের যে দাম সাঁটিয়ে দিয়েছেন, তা ‘অতিরিক্ত’ বলে মন্তব্য করেছেন আগ্রহী ক্রেতারা।

রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নগরের জিইসি কনভেনশন সেন্টারে ফার্নিচার মেলায় গিয়ে দেখা যায়, বিক্রেতারা স্টলের সামনে ক্রেতার অপেক্ষায় আছেন।

তবে ক্রেতাদের তেমন উপস্থিতি নেই। দু-একজন এলেও দাম নাগালের বাইরে হওয়ায় দেখেই চলে যাচ্ছেন। বিশেষ ছাড় দেওয়ার কথা থাকলেও সেটি দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন অনেক ক্রেতা। আবার ছাড় দিলেও তা নামেমাত্র। লিগ্যাসি স্টলে দুটি চেয়ারের মূল্য ধরা হয়েছে ৭০ হাজার টাকা। মেলা উপলক্ষে ছাড় দিয়ে এখন নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৩ হাজার টাকা। পাশে রাখা ছোট একটি টি-টেবিলের মূল্য ধরা হয়েছে ২৫ হাজার টাকা। মেলা উপলক্ষে ছাড় দেওয়ার পর সেটি কিনতে দিতে হবে ২২ হাজার ৫০০ টাকা।

মেলায় এসে আগ্রাবাদের বাসিন্দা বেসরকারি চাকরিজীবী সায়মা আলম বাংলানিউজকে বলেন, ঢাক-ঢোল পিটিয়ে মেলা শুরু করেছে বিশেষ ছাড় দিবে বলে। সেই বিশেষ ছাড় মাত্র দুই থেকে তিন হাজার টাকা। ছাড়ের পরও দুটি চেয়ারের মূল্য ৬৩ হাজার টাকা। অথচ সেগুন কাঠের চেয়ার বানাতেও এত টাকা লাগবে না।

নন্দনকানন এলাকার সানজীদ রহমান মেলায় এসে হতাশা প্রকাশ করে বলেন, ‘অনেক মানুষ এখানে দর্শনার্থী হিসেবেই এসেছেন বলে মনে হচ্ছে। কারণ দাম দেখেই মেলা ছাড়ছেন তারা। এর চাইতে বলির হাট ফার্নিচার মার্কেটে গেলেই ভালো হতো’।  

তবে মেলার সমন্বয়ক মঞ্জুরুল ইসলাম রায়হান বাংলানিউজকে বলেন, মেলায় সব দামের পণ্য রয়েছে। ক্রেতারা তাদের সাধ্যের মধ্যে ক্রয় করবেন। শো-রুমের দামের সঙ্গে মেলার পণ্যের দামের তফাৎ রয়েছে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৫, ২০২৩ 
বিই/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।