ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ৩০ জুন ২০২২, ০০ জিলহজ ১৪৪৩

স্বাস্থ্য

নিউমার্কেটে পুলিশ নিষ্ক্রিয় ছিল কেন: মির্জা ফখরুল

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২২
নিউমার্কেটে পুলিশ নিষ্ক্রিয় ছিল কেন: মির্জা ফখরুল

ঢাকা: নিউমার্কেট এলাকায় ব্যবসায়ী ও দোকানকর্মীদের সঙ্গে ছাত্রদের সংঘর্ষ বন্ধে পুলিশের ‘নিষ্ক্রিয়’ ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে বিএনপির মহাসচিব এ প্রশ্ন তুলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) নিউমার্কেট এলাকায় ছাত্রদের সঙ্গে ব্যবসায়ী ও দোকানকর্মীদের যে সংঘর্ষ হয়েছে এতে একজনের প্রাণ গেছে এবং কয়েকজন মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন। আমার প্রশ্ন যে, পুলিশের যে কর্মকর্তারা দায়িত্বে ছিলেন তাদের জিজ্ঞাসা করা হলে তারা বলেছেন যে, স্ট্র্যাটেজিক কারণে আমরা (পুলিশ) নিষ্ক্রিয় ছিলাম। কোন স্ট্র্যাটেজিক কারণে আপনারা নিষ্ক্রিয় ছিলেন? সেই স্ট্র্যাটেজিক কারণ হচ্ছে, দেশে মানুষ নিহত হবে, এই স্ট্র্যাটেজিক কারণে যে একটা সমস্যা তৈরি হবে, সেই সমস্যা নিয়ে তারা মানুষকে বিভ্রান্ত করে তাদের প্রবাহিত করবে? কোনো স্ট্র্যাটেজিক কারণ থাকে যখন বিএনপির ছোট-খাটো কর্মসূচি থাকে তা প্রতিরোধ করার জন্য শত শত পুলিশ মুহূর্তের মধ্যে সেখানে উপস্থিত হয়। কোন স্ট্র্যাটেজিক কারণে গুলি করে বিএনপির মিছিলগুলো স্তব্ধ করে, কোন স্ট্র্যাটেজিক কারণে মানুষ হত্যা করে বিরোধী দলের যে বৈধ আন্দোলন সেটাতে ব্যাহত করে দেয়।

তিনি বলেন, এ কথা বলার কোনো অপেক্ষা রাখে না যে, এই সরকার সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে, এই ব্যর্থ সরকার এখন রাষ্ট্রকে ব্যর্থ করেছে। এটা একটা ফেল্ড স্টেট। কোথাও তাদের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই, কোথাও কোনো জবাবদিহিতা নেই। আজকে পুলিশকে জবাবদিহি করতে হয় না, অন্যান্য ডিপার্টমেন্টগুলো আছে সেখানে কোনো জবাবদিহি করতে হয় না, চুরি করে, দুর্নীতি করে সেখানে কোনো জবাবদিহি করতে হয় না। এই যে এতোগুলো দুর্নীতির খবর পত্র-পত্রিকায় প্রকাশ হলো, আমরা বললাম তারপরেও সেগুলোর বিষয়ে কিন্তু কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেনি দুদক।

গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিএনপির উদ্যোগে দলের গুম-খুন ও নির্যাতনের শিকার নেতাকর্মীদের পরিবারের সদস্যদের ঈদ সহযোগিতা দিতে এই অনুষ্ঠান হয়। এ অনুষ্ঠানে গুম হওয়া নেতাকর্মীদের মধ্যে পাঁচ পরিবারের সদস্যদের তারেক রহমানের ঈদ শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেন মির্জা ফখরুল।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, কেন্দ্রীয় নেতা আতিকুল রহমান রুম্মন রুম্মন ও নিহত ছাত্রদল নেতা নুরুল আলম নুরুর স্ত্রী সুমি আখতার ।

বিএনপি নেতা মীর হেলাল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নাজমুল আহসানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য বিজন কান্তি সরকার, কেন্দ্রীয় নেতা এ টি এম আব্দুল বারী ড্যানি, তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহমেদ, ওবায়দুর রহমান চন্দন, আমিরুল ইসলাম খান আলিম, আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন, তারিকুল ইসলাম তেনজিং, আবদুস সাত্তার পাটোয়ারি, স্বেচ্ছাসেবক দলের মোস্তাফিজুর রহমান ও আবদুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল, চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের এ বি এম আবদুস সাত্তার, জেড খান রিয়াজ উদ্দিন নসু, শায়রুল কবির খান, শামসুদ্দিন দিদার প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২২
এমএইচ/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa