ঢাকা, সোমবার, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

সালতামামি

দেশের ফুটবলে সব ছাপিয়ে কাজী সালাউদ্দিনের জয়

রিফাত আনজুম, স্টাফ করেস্পন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮২০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
দেশের ফুটবলে সব ছাপিয়ে কাজী সালাউদ্দিনের জয় কাজী সালাউদ্দিন

২০২০ সালের শেষ সময়ের কাউন্টডাউন চলছে। পালে নতুন বছরের বাতাস বইতে শুরু করেছে।

তবে ইতি টানতে যাওয়া বছরটায় দেশের ফুটবল অঙ্গনে খুব একটা ভালো যায়নি। যদিও করোনা ভাইরাসের জন্য বেশির ভাগ সময়টা মাঠে গড়ায়নি ফুটবল। তবে সব ছাপিয়ে টানা চতুর্থবারের মতো বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি নির্বাচিত হওয়া কাজী সালাউদ্দিন ছিলেন বেশ আলোচনায়।

এছাড়া করোনার আগে ও পরে বাংলাদেশ জাতীয় দল যে কয়েকটি ম্যাচ খেলেছে তাতে ফলাফল সন্তোষজনক ছিল না। এমনকি ক্লাব ফুটবলেও পড়েছিল করোনার বিস্তর প্রভাব।

দেখে নেওয়া যাক ২০২০ সালে দেশের ফুটবলটা কেমন কেটেছে।

জানুয়াতি মাসের শুরুটা হয় মাঝপথের ক্লাব ফুটবল দিয়ে। ২০১৯-২০ মৌসুমের ফেডারেশন কাপের খেলা চলমান থাকে। সেটার পরিসমাপ্তি হয় জানুয়ারির ০৫ তারিখ। আসরটি ফাইনালে রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটিকে ২-১ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় বসুন্ধরা কিংস।

এরপর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ। ছয় দলের অংশগ্রহণে শুরু হয় এই টুর্নামেন্ট। তবে টুর্নামেন্টটি মোটেও ভাল যায়নি বাংলাদেশের। 'এ' গ্রুপের রানার্স-আপ দল হিসেবে সেমিফাইনালে ওঠে জামাল ভূঁইয়ার দল। কিন্তু সেমিফাইনালে বুরুন্ডির কাছে ৩-০ গোলে হেরে বিদায় নেয় বাংলাদেশ। বুরুন্ডিকে ফাইনালে ৩-১ গোলে হারিয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপের দ্বিতীয় শিরোপা ঘরে তোলে ফিলিস্তিন।

ফেব্রুয়ারি মাসের ১৩ তারিখ থেকে শুরু হয় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ২০১৯-২০ মৌসুমের খেলা। তখন দেশে করোনার প্রভাব পড়তে শুরু করে। ধীরে ধীরে দেশের করোনার প্রকোপ বেড়ে গেলে মার্চের মাঝামাঝি সময়ে ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সবধরনের খেলাধুলা অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত ঘোষণা করে। ফলে ষষ্ঠ রাউন্ডের পর বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন প্রিমিয়ার লিগ স্থগিত করে। পরে ক্লাবদের সঙ্গে বৈঠক করে সম্মতি নিয়েই প্রিমিয়ার লিগের ২০১৯-২০ মৌসুমের খেলা বাতিল ঘোষণা করে ফেডারেশন।

করোনার মধ্যে দেশের ফুটবল স্থবির হয়ে পড়ে। তবে এর মাঝেই কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ ও এশিয়া কাপের বাছাইপর্বের জন্য ২৬ জুলাই ৩৬ সদস্যের দল ঘোষণা করে ফুটবল ফেডারেশন। এখানেই সবচেয়ে বড় আলোচনা তৈরি হয়। আগস্টে ক্যাম্প শুরু সময় করোনা পরীক্ষায় দেখা যায় ৩০ ফুটবলাররে মধ্যে ১৮ জনই করোনায় আক্রান্ত। যদিও পরে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের এশিয়া অঞ্চলের সব খেলাই স্থগিত করা হয়।

৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি নির্বাচন। কিন্তু হাজারো সমালোচনার পরও এই নির্বাচনে সম্মিলিত পরিষদ থেকে ৯৪ ভোট পেয়ে টানা চতুর্থবার বাফুফে সভাপতি নির্বাচিত হন কাজী সালাউদ্দিন। সম্মিলিত পরিষদ প্যানেলের সদস্যরা বিজয় লাভ করে।

পরবর্তীতে করোনা বিরতির পর দেশের জাতীয় দল মাঠে ফেরে নভেম্বর মাসে। নেপালকে নিয়ে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন আয়োজন করে মুজিববর্ষ ফিফা আন্তর্জাতিক ফুটবল সিরিজ। দুই ম্যাচের সিরিজটি বাংলাদেশ ১-০ ব্যবধানে জিতে নেয়। প্রথম ম্যাচে নেপালকে ২-০ গোলে হারায় জামাল ভূঁইয়ার দল। দ্বিতীয় ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়।

জাতীয় দলের বছরটা শেষ হয় কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ ও এশিয়া কাপের বাছাইপর্বের ম্যাচ দিয়ে। জুলাইয়ে স্থগিত হওয়া এশিয়া অঞ্চলের ম্যাচ শুরু হয় কাতার-বাংলাদেশ ম্যাচের মধ্য দিয়ে। বাংলাদেশকে ফিরতি লেগের ম্যাচ খেলার আমন্ত্রণ জানায় কাতার। ডিসেম্বরের ০৪ তারিখ অনুষ্ঠিত হয় ম্যাচটি। কাতারের মাঠে তাদের কাছে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত হয় জেমি ডের শিষ্যরা। ফলে হতাশা দিয়ে বছর শেষ করে দেশের ফুটবল।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০০, ২০২০
আরএআর/এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa