ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৫ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

নেপাল-ভুটানের সঙ্গে ব্যবসা বাড়াতে রহনপুরকে পূর্ণাঙ্গ রেলবন্দর করা হবে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪০ ঘণ্টা, মার্চ ১২, ২০২১
নেপাল-ভুটানের সঙ্গে ব্যবসা বাড়াতে রহনপুরকে পূর্ণাঙ্গ রেলবন্দর করা হবে পথসভায় বক্তব্য রাখছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: নেপাল ভুটানের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা এবং ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুরকে পূর্ণাঙ্গ রেল বন্দরে রূপান্তর করা হবে। এজন্য যা করা দরকার, সবই করবে আওয়ামী লীগ সরকার।

 

শুক্রবার (১২ মার্চ) বিকেলে রহনপুর রেল স্টেশন পরিদর্শনে এসে স্টেশন চত্বরে এক সংক্ষিপ্ত পথসভায় এ কথা বলেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

তিনি বলেন, বর্তমান শেখ হাসিনার সরকার উন্নয়নের সরকার। সারাদেশে ব্যাপক উন্নয়ন করা হচ্ছে। রহনপুর একটি গুরুত্বপূর্ণ রেল স্টেশন। সেহেতু, বর্তমানে বাংলাদেশ-ভারত-নেপাল বাণিজ্যরুট চালু রয়েছে, তাই দ্রুত ভুটানের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করে বাণিজ্যরুটটি আরও সম্বৃদ্ধ করা হবে। আর এজন্য ইতোমধ্যেই ভারতের সঙ্গে বর্তমান সরকার ভুটান পর্যন্ত রেল লাইন সম্প্রসারণের মাধ্যমে বাণিজ্য বাড়াতে একমত হয়েছে।

উপস্থিত নেতা-কর্মীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে রেলমন্ত্রী আরও বলেন, রহনপুর থেকে করোনাকালীন বন্ধ হওয়া সব ট্রেন রমজানের আগেই চালু করা হবে। এছাড়া এ অঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ অর্থকরী ফসল আম পরিবহনের জন্য শিগগিরই ম্যাঙ্গো ট্রেনও চালু করা হবে।  সেইসঙ্গে অন্যান্য ফসল ও শাক-সবজি পরিবহনের জন্য প্রত্যেক ট্রেনের সঙ্গে অতিরিক্ত বগি সংযোজন করা হবে, যেন কৃষকরা স্বল্প খরচে পণ্য পরিবহন করতে পারেন।

রেলকে উজ্জীবিত করা প্রসঙ্গে নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, লোকবল নিয়োগে রেলের নীতিমালা চূড়ান্ত হয়েছে। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে ১০ থেকে ১৫ হাজার নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

লোকবল ও কাঠামোর অভাব ঘুচিয়ে সার্মথ্য বাড়ানো গেলে ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে রেল যোগাযোগ আরও ত্বরান্বিত হবে। এ সময় রেলমন্ত্রীকে জেলার বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরার পাশাপাশি ১৮ দফা দাবি সম্বলিত একটি পত্র দেওয়া হলে রেলমন্ত্রী দাবিগুলো পর্যালোচনা করে পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেওয়ার আশ্বাস দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডা. শামিলউদ্দিন আহমেদ শিমুল এমপি, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি আব্দুল ওদুদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি সাবেক এমপি জিয়াউর রহমান, সাবেক এমপি গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস, নাচোল উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, গোমস্তাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হুমায়ন রেজা, ভোলাহাট উপজেলা চেয়ারম্যান রাব্বুল হোসেন, রহনপুর পৌরসভার মেয়র মতিউর রহমান খান, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হালিমা বেগম, ছাত্রলীগ জেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নাহিদ শিকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক মৌসুমী আকতার স্মৃতিসহ অন্যান্য নেতারা।  

এছাড়া রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব সেলিম রেজা, মহাপরিচালকসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে মন্ত্রী রাজশাহী থেকে রেলযোগে রহনপুর স্টেশন চত্বরে পৌঁছে রেল স্টেশন পরিদর্শন করেন এবং পথসভা শেষে আবারও রাজশাহীর উদ্দেশে ওই ট্রেনেই রহনপুর ত্যাগ করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৫ ঘণ্টা, মার্চ ১২, ২০২১
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa