ঢাকা, রবিবার, ১৯ আষাঢ় ১৪২৯, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৩ জিলহজ ১৪৪৩

বইমেলা

বইমেলার শেষ দিন যেমন ছিল

ডিএইচ বাদল, সিনিয়র ফটো করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩১২ ঘণ্টা, মার্চ ১৮, ২০২২
বইমেলার শেষ দিন যেমন ছিল দোকানগুলোতে বই প্রেমীদের ভিড়

ঢাকা: এ বছর ১৫ ফেব্রুয়ারি ১৪ দিনের জন্য শুরু হয় অমর একুশে বইমেলা। প্রতি বছর ফেব্রুয়ারির ১ তারিখে মেলা শুরু হলেও এবার করোনার কারণে কিছুটা অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে যায় বই মেলা।

পরে আয়োজকরা অনেক চিন্তা ভাবনা করে স্বল্প সময়ের জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে বইমেলা শুরু করে ১৫ ফেব্রুয়ারি। তবে কর্তৃপক্ষ আশ্বাস দিয়েছিল পরিস্থিতি ভালো হলে বাড়তে পারে মেলার সময়। শেষ অবধি সময় ১৭ মার্চ পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) ছিল অমর একুশে বই মেলা, ২০২২ এর শেষ দিন। তাই চারিদিকে এই মিলন মেলার ভাঙনের সুর লেগেছে। এ দিন ছিল মহামানব জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন। তাই বই মেলায় ছোটদের জন্য ছিলো শিশু প্রহর। সকাল ১১ টায় মেলার দ্বার খুলতেই ছোট ছোট শিশুরা আসতে শুরু করে বই মেলা প্রাঙ্গণের শিশুচত্বরে।

শিশুদের জন্য বই মেলার সিসিমপুরে ছিল মজার মজার সব আয়োজন

মেলার শেষ দিনে বই কেনার জন্য সব বয়সের মানুষরা ভিড় করেছেন বইয়ের দোকানগুলোতে।

মেলা ঘুরে ক্লান্ত হয়ে বিশ্রাম নিচ্ছে একটি বই প্রেমী পরিবার।

পছন্দের লেখকের সঙ্গে সেলফি তোলায় ব্যস্ত একদল পাঠক

গরমের তীব্রতা কিছুটা কমে আসতেই বিকেলে মেলায় বই প্রেমিদের ভিড় দেখা যায়।

রঙ বেরঙের শাড়ি আর মাথায় ফুলের গহনা পরে শেষ দিনে বই মেলা ঘুরছে এক দল তরুণী।

সন্ধ্যায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে লেজার শোয়ের আয়োজন করা হয়।

রাত ৮টায় বাংলা একাডেমির মূল মঞ্চে আলোচনা সভা, এক মিনিট দাঁড়িয়ে নিরবতা ও পুরষ্কার বিতরণের মধ্য দিয়ে পর্দা নামানো হয় অমর একুশে বই মেলা ২০২২ এর।

২০২৩ এ মহামারি মুক্ত, সুন্দর ও জমজমাট বইমেলার স্বপ্ন নিয়ে শেষ হলো এবারের আয়োজন।

বাংলাদেশ সময়: ১৩১২ ঘণ্টা, মার্চ ১৮, ২০২২
জেডএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa