ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৮ শাবান ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

দেশে ইলেকট্রনিক্স পণ্যের পথিকৃৎ নজরুল ইসলামের ইন্তেকাল

বিজনেস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭৩৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৭
দেশে ইলেকট্রনিক্স পণ্যের পথিকৃৎ নজরুল ইসলামের ইন্তেকাল

দেশের ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল শিল্পের স্বপ্নদ্রষ্টা এসএম নজরুল ইসলাম ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি…রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৯৩ বছর।

রোববার (১৭ ডিসেম্বর) দিনগত রাত ৯টা ৪০ মিনিটে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে বাধ্যর্কজনিত কারণে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ওয়ালটন গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান এসএম নজরুল ইসলাম।  

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, পাঁচ ছেলে, দুই মেয়ে, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।


 
এদিকে চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে শোকাহত ওয়ালটন পরিবার তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছে।

এসএম নজরুল ইসলাম ১৯২৪ সালের ৭ মে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার গোসাই জোয়াইর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম এস. এম. আতাহার আলী তালুকদার, মায়ের নাম শামছুন নাহার।

বাংলাদেশের ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স পণ্য উৎপাদন শিল্পের পথিকৃৎ এ উদ্যোক্তা দেশের শীর্ষস্থানীয় ইলেকট্রনিক্স, ইলেকট্রিক্যাল, আইওটি, হোম ও কিচেন অ্যাপ্লায়েন্সেস প্রস্তুত ও বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন এবং মার্সেল প্রতিষ্ঠা করেন।  

সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) সকাল পৌনে ১১টায় রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় ওয়ালটন গ্রুপের করপোরেট অফিসে মরহুমের প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর দুপুর ১২টায় গাজীপুরের চন্দ্রায় অবস্থিত ওয়ালটন কারখানায় দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।  

মরহুমের তৃতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বাদ আসর টাঙ্গাইলের গোসাই জোয়াইরে তার নিজ গ্রামে। এরপর পারিবারিক কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে শায়িত করা হবে তাকে।

এসএম নজরুল ইসলাম ১৯৭৭ সালে ওয়ালটন গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেন। তার দূরদর্শিতা ও সুযোগ্য পরিচালনায় ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ লেখা ওয়ালটন পণ্যের সুনাম ও খ্যাতি দেশের সীমানা পেরিয়ে আন্তর্জাতিক বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৭
পিআর/জেডএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।