ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৩ জুন ২০২৪, ০৫ জিলহজ ১৪৪৫

ভারত

ত্রিপুরায় বুদ্ধ জয়ন্তী উদযাপিত 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৩ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০২৪
ত্রিপুরায় বুদ্ধ জয়ন্তী উদযাপিত 

আগরতলা(ত্রিপুরা): বৃহস্পতিবার(২৩ মে) বুদ্ধ ধর্মের প্রবর্তক গৌতম বুদ্ধের জন্মতিথি। এবছর ভগবান শ্রী গৌতম বুদ্ধের ২,৫৬৮ তম জন্ম তিথি।

ভগবান গৌতম বুদ্ধ জন্ম, বুদ্ধত্ব লাভ এবং মহাপরিনির্বাণ লাভ হয় এই পুন্য তিথিতে । বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসরত বুদ্ধ ধর্মাবলম্বী মানুষের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে এদিন ত্রিপুরা রাজ্য জুড়ে উদযাপিত হচ্ছে এই জয়ন্তী।  

এই উপলক্ষে রাজধানী আগরতলার বেনুবন বিহার বুদ্ধমন্দির অভয়নগর বুদ্ধ মন্দিরসহ অন্যান্য জায়গার সকাল থেকেই উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা যায়। এই উৎসব মূলত বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী মানুষের হলেও সর্বধর্মাবলম্বী মানুষদের উপস্থিতিতে বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্য পরিলক্ষিত হল রাজধানীর বেনুবন বুদ্ধ বিহারে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. মানিক সাহা বুদ্ধ জয়ন্তী উপলক্ষে রাজ্যবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

এ দিন সকাল থেকে শুরু হয় গোটা বিশ্ব এবং বিশ্বের সমস্ত প্রাণীদের মঙ্গল কামনায় প্রার্থনা সভা। প্রার্থনা সভায় প্রচুর সংখ্যক বুদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা যোগদান করেন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই বুদ্ধ ধর্মাবলম্বী ছাড়াও অন্যান্য ধর্মাবলম্বী লোকেরাও ভিড় জমান বেনুবন বুদ্ধ বিহারে। এই উৎসব প্রসঙ্গে বেনুবন বুদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ বিক্ষু মহারাজ বলেন, বুদ্ধধর্ম শান্তির প্রতীক, তাই সব ধর্মের, সব বর্ণের, সব জাতির মানুষই এখানে সমবেত হন।

বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে বুধবার থেকেই বেনুবন বুদ্ধ বিহারে ধর্মীয় অনুষ্ঠান শুরু হয়। বুধবার সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয় বিশেষ প্রার্থনা সভা। বুদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষে প্রতি বছরের মত এবারো বেনুবন বুদ্ধ বিহারে বিভিন্ন ধর্মীয় কর্মসূচি আয়োজন করা হয়। সেই সঙ্গে মন্দির প্রাঙ্গনে দু'দিনব্যাপী মেলা বসেছে। বেনুবন বিহারের পাশাপাশি বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে আগরতলা দুর্গাবাড়ি এলাকায় মেলা বসেছে। রাজধানী আগরতলার পাশাপাশি অন্যান্য জায়গা যথাযোগ্য ভাবে উদযাপন করা হচ্ছে বুদ্ধ পূর্ণিমা তিথি।
 
বুদ্ধদেব যেহেতু সারা জীবন শান্তির চেষ্টা চালিয়েছেন চাই এদিন রাজ্যে পশু নিধনের উপর একদিনের নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে, সেই সঙ্গে সরকারি ছুটি ও ঘোষণা করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৯ ঘণ্টা, মে, ২০২৪
এসসিএন/এমএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।