ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৩ মে ২০২৪, ১৪ জিলকদ ১৪৪৫

অফবিট

ধূমপায়ী পর্যটকদের কপাল পুড়ছে থাইল্যান্ডে

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৫২ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৭, ২০১৭
ধূমপায়ী পর্যটকদের কপাল পুড়ছে থাইল্যান্ডে থাইল্যান্ডের অপরূপ এক সৈকত।

ঢাকা: এবার ধূমপায়ী পর্যটকদের কপাল পুড়ছে থাইল্যান্ডে। শেষ হচ্ছে সাগরের বাতাস মেখে সিগারেটে সুখটান দিয়ে আয়েসে ধোঁয়া ছাড়ার দিন।  দেশটির অন্তত ২০টি আকর্ষণীয় সমুদ্র সৈকতে ধূমপান নিষিদ্ধ হচ্ছে আসছে নভেম্বর থেকে।  

এ নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে জেলের ঘানি টানতে হতে পারে বছর খানেক। অথবা গুণতে হতে পারে ৩ হাজার মার্কিন ডলার (১ ডলারে ৮২ টাকা)।

 

সম্প্রতি আন্দামান ও থাই সাগরের মধ্যবর্তী ফুকেট দ্বীপ প্রদেশের পাতং সৈকতের মাত্র দেড় মাইল তটরেখা থেকে ১ লক্ষ ৪০ হাজার সিগারেটের মোতা পরিষ্কারের পর এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এ নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়ছে আন্দামান সাগর ও থাই উপসাগরের তীরবর্তী ক্র্যাবি, কোহ সামুই, পাতায়া, ফুকেট ও পাঙ নজা’র মতো আকর্ষণীয় সব সৈকত।

ট্যুরিজম অথরিটি অব থাইল্যান্ডের গভর্নর ইয়োতাসাক সুপাসর্ন বলছেন, এসব দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সেরা সমুদ্র সৈকত। আমরা  এগুলোর সৌন্দর্য অটুট রাখতে চাই।

তবে ধূমপায়ীদের জন্য নির্দিষ্ট স্মোকিং এরিয়া রাখা হবে বলে আশ্বস্ত করেন তিনি।

পর্যটন হলো থাই অর্থনীতির অন্যতম চালিকা শক্তি। ফি বছর ৩০ মিলিয়ন পর্যটক দেশটিতে ভ্রমণে যান। তাদের অবিবেচনা প্রসূত কর্মকাণ্ড, যত্রতত্র মূত্র ও ময়লা ত্যাগ এবং ধূমপানের পর ফেলে দেওয়া সিগারেটের মোতা দেশটির প্রকৃতি, পরিবেশ ও বাস্তু সংস্থানের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে বলে মনে করছে থাই কর্তৃপক্ষ।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫০ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৭, ২০১৭
জেডএম/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।