ঢাকা, বুধবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

বাণিজ্যমেলা

হার্টের রোগীদের জন্য সুখবর, রান্না হবে তেল ছাড়াই

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৪৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৯, ২০১৭
হার্টের রোগীদের জন্য সুখবর, রান্না হবে তেল ছাড়াই তেল ছাড়াই রান্নার উপকরণ

ঢাকা: হার্টে ব্লক ধরা পড়েছে। তাই তেল, চর্বি খাওয়া একদম মানা। অথবা রক্তে কলেস্টরল বেশি বলে খেতে হচ্ছে বেছে বেছে। এমন ব্যক্তি বা রোগীদের জন্য সুখবর। তাদের জন্য বাজারে পাওয়া যাচ্ছে তেল ছাড়াই রান্নার উপকরণ।

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় রান্নার এমন উপকরণ এনেছে পাকিস্তান ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান WELCO।

জানা গেছে, তেল ছাড়াই রান্নার জন্য এরা দুইটি বিশেষ ধরনের পাত্র তৈরি করেছে।

যা ননস্টিক। এই পাত্র দুটির একটি হচ্ছে স্টিম বয়লার। আর অন্যটি হচ্ছে বার বি কিউ। স্টিম বয়লারের তিনটি অংশ। এতে ভাত, সবজি, ভাপা পিঠাসহ যেকোনো ধরনের সিদ্ধ খাবার তেল ছাড়াই রান্না করা যায়।  

এজন্য স্টিম বয়লারের নিচের অংশে ২ লিটার বা প্রয়োজন মতো পানি দিতে হবে। এর ওপর দিতে হবে ট্রে’র মতো একটি পার্ট। তারপর যা রান্না করা দরকার, তা দিতে হবে। এরপর ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিলেই চলবে। তবে, পাত্রটি কিন্তু চুলার ওপর অবশ্যই রাখতে হবে।

ভাত রান্নার জন্য নিচের অংশে প্রয়োজন মতো পানি দিয়ে তাতে চাল দিতে হবে। পানি গরম হলেই চালগুলো রাখতে হবে ট্রে’র ওপরে। পুরো প্রণালীর জন্য সময় লাগবে মাত্র ২০ মিনিট।

সবজি কিংবা অন্য কোনো তরকারিও রান্না করা যাবে এতে। এজন্য তরকারির সঙ্গে কেবল মসলা মিশিয়ে দিলেই চলবে। এরপর কায়দা করে তা নিচের পানিতে মিশিয়ে নিলেই ঝোল তরকারিও হয়ে যাবে।  দুইটি মডেলের স্টিম বয়লারের দাম যথাক্রমে ২ হাজার ৫শ’ টাকা এবং ৩ হাজার টাকা ধরা হয়েছে।
 
এদিকে, বার বি কিউ নামে যে পাত্রটি WELCO বাজারে এনেছে, তাতে সব ধরনের মাছ, মাংস রান্না হবে তেল ছাড়া। এক্ষেত্রে মাছের তেল দিয়েই মাছ ভাজার মতোই প্রক্রিয়া!

তেল ছাড়াই রান্নার উপকরণচাইলে ফ্রাই করা ছাড়াও কারিও করা যাবে। এজন্য কেবল প্রয়োজন মতো মসলা মিশিয়ে সিদ্ধ করে নিয়ে নিচের অংশে রাখা পানিতে ছেড়ে দিতে হবে। তিনটি মডেলের বার বি কিউ পাত্রের দাম যথাক্রমে ২ হাজার ৫শ’ টাকা, ৩ হাজার টাকা ও ৪ হাজার টাকা রাখা হচ্ছে।

WELCO এর কর্নধার মোহাম্মদ আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, মেলা শেষ হলেই পাকিস্তান চলে যাবো। তবে, বাংলাদেশে আমার কর্মী আছে। কোনো সমস্যা হলে তার মাধ্যমেই সমাধান করা যাবে। কেননা, পণ্যের ওপর এক বছরের ওয়ারেন্টি থাকছে।
প্রতিষ্ঠানটি পণ্য দুটির ব্যবহার ও কার্যকারিতা বোঝাতে নিজেরাই রান্না করে প্রদর্শনীর ব্যবস্থা রেখেছে বাণিজ্যমেলায়। এতে সাড়াও পড়েছে বেশ। অনেকেই রান্না করা খাবার থেকে একটু নিয়ে মুখে দিচ্ছেন। এতে সন্তুষ্ট তারা।

আলী আজগর নামে অবসরপ্রাপ্ত এক শিক্ষক এক টুকরো মাংস চেখে বাংলানিউজকে বলেন, রান্না তো ভালোই হয়! এক সেট তবে কিনতেই হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৯, ২০১৭
ইইউডি/পিসি
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa