ঢাকা, রবিবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৭ সফর ১৪৪৪

নির্বাচন

কাজিপুর ইউনিয়নে চার শিক্ষকের ভোটযুদ্ধ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ২০, ২০২১
কাজিপুর ইউনিয়নে চার শিক্ষকের ভোটযুদ্ধ রেজাউল হক, গোলাম সরোয়ার, আব্দুর রশিদ ও আলম হুসাইন।

মেহেরপুর: মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার কাজিপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন চার স্কুল শিক্ষক।

এরা হলেন- প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. রেজাউল হক মাস্টার লড়ছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে, স্বতন্ত্র প্রার্থী করমদী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুহ. আলম হুসাইন (চশমা প্রতীকে), স্বতন্ত্র প্রার্থী সাহেবনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুর রশিদ (আনারস প্রতীকে) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. গোলাম সরোয়ার আযম (দুটি পাতা প্রতীকে)।

এছাড়া অন্য স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল আলিম (টেবিল ফ্যান প্রতীকে) সাহেবনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি।

এর আগে কাজিপুর ইউনিয়ন পরিষদের প্রয়াত চেয়ারম্যান রাহাতুল্ল্যাহ ও ছিলেন সাহেবনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক।

চার শিক্ষকের ভোটযুদ্ধে এলাকার মানুষও খুব খুশি জানিয়ে সাহেবনগর গ্রামের ভোটার জামশেদ আলী, আব্দুর রহমান, হাড়াভাঙ্গা মাদ্রাসার প্রিন্সিপ্যাল আব্দুর রাজ্জাক, ভবানীপুর গ্রামের নাহারুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম বলেন, কাজিপুর ইউনিয়নবাসী গর্বিত যে, এই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হবে শিক্ষিত।

এ ব্যাপারে সাবেক চেয়ারম্যান ও কমদী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহ. আলম হুসাইন বলেন, শিক্ষকতা পেশার পাশাপশি আমাকে এর আগেও কাজিপুরবাসী চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছিলেন। আমি চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় জনগণের আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটিয়েছি। তবে তিনি অভিযোগ করে বলেন, সরকার দলীয় প্রার্থী রেজাউল হক মাস্টারের লোকজন প্রত্যেক স্বতন্ত্র প্রার্থীকে নানাভাবে হয়রানি করছেন। হামলা, হুমকি ধমকিসহ শারীরিকভাবেও লঞ্ছিত করছেন।
 
স্বতন্ত্র প্রার্থী সাহেবনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রশিদ জানান, ভোটযুদ্ধে চার জন শিক্ষক অংশ নিয়েছি। জনগণ যাকে মনে করবেন তাকেই ভোট দেবেন।

আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী রেজাউল হক মাস্টার জানান, সারাজীবন শিক্ষকতা পেশায় ছিলাম। সেখানে সুনামের সঙ্গেই ছিলাম। এবার জনগণের কাতারে এসেছি তাদের সেবা করতে। আশা করছি জনগণ আমার আগের সুনামের কথা বিবেচনা করে নির্বাচিত করবেন।

এদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. গোলাম সরোয়ার আযম বলেছেন, আমি ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে ছিলাম। এখন আমি বিএনপির মূল রাজনীতির সঙ্গে আছি। এলাকায় একজন শিক্ষক ও রাজনীতিক হিসেবে আমার সুনাম আছে। ইউনিয়নবাসী আমাকে ভোট দেবেন এ প্রত্যাশা আমার আছে।

আসন্ন ২৮ নভেম্বর ৩য় ধাপে কাজিপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৬২২ ঘণ্টা, নভেম্বর ২০, ২০২১
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa