ঢাকা, বুধবার, ১২ মাঘ ১৪২৮, ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

টাটার জমি ফেরত পাওয়ায় সিঙ্গুরে খুশির হাওয়া

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৪ ঘণ্টা, জুন ১০, ২০১১

কলকাতা: বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অর্ডিন্যান্স জারি করে টাটা মোটর গাড়ি প্রকল্পের জন্য অধিগ্রহণ করা ৯৯৭.১১ জমি কৃষকদের ফিরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর শুক্রবার থেকে খুশির হাওয়া সিঙ্গুরের গ্রামগুলিতে।

বাজেমিলিয়া, বেড়াবেড়ি, খাসেরভেড়ি ও সিংহেরভেড়ি গ্রামের মানুষ শুক্রবার সকাল থেকেই দলবেঁধে জাতীয় সড়কের পাশে টাটা প্রকল্পের পাশে জড়ো হন।



সকাল ১০টায় খাসেরভেড়ি এলাকা থেকে মিছিল বের করেন সিঙ্গুরের অনিচ্ছুক কৃষকরা। বহু মহিলা ও পুরুষ মিছিলে অংশ নেন।

সিঙ্গুর কৃষি জমি রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক ও হরিপালের তৃণমূল বিধায়ক বেচারাম মান্না সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘মমতাদির সিদ্ধান্তে সিঙ্গুরের কৃষকরা এবং আমরা আনন্দে উচ্ছসিত। ’

এদিকে, অর্ডিন্যান্স জারি করে সিঙ্গুরে জমি ফেরত নেওয়ার সরকারি সিদ্ধান্তের বিরোধীতা করেছে রাজ্যের বিরোধী জোট বামফ্রন্ট।

এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাতে শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল এম কে নারায়ণনের সাথে দেখা করেন বামফ্রন্টের প্রতিনিধিরা।

এই প্রতিনিধিদলে ছিলেন, বিরোধীদল নেতা ডা. সূর্যকান্ত মিশ্র, সিপিএমের চিফ হুইপ আবদুল রেজ্জাক মোল্লা প্রমুখ।

রাজ্যপালের কাছে অভিযোগ জানিয়ে  এসে সংবাদমাধ্যমকে সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, ‘জমি ফেরত দেওয়ার পদ্ধতি ঠিক নয়। যে ভাবে অর্ডিন্যান্স জারি করে জমি টাটাদের থেকে কেড়ে
নেওয়া হয়েছে, তা অসাংবিধানিক।

বামফ্রন্টের এই অভিযোগের জবাবে তৃণমূলের লোকসভার সাংসদ কল্যাণ ব্যানার্জি পাল্টা বলেন, ‘ভারতের সংবিধানের ২১৩ ধারা অনুযায়ী অর্ডিন্যান্সের মেয়াদ ৬ মাস। আর রাজ্য সরকারকে এই ৬ মাসের মধ্যেই আইনিভাবে বিষয়টির নিষ্পত্তি করতে হবে। ’

বাংলাদেশ সময়: ২১১৩ ঘণ্টা, জুন ১০, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa