ঢাকা, বুধবার, ৪ কার্তিক ১৪২৮, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

তীব্র গরমে হাঁসফাঁস করছেন ত্রিপুরাবাসী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১১ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৬, ২০২১
তীব্র গরমে হাঁসফাঁস করছেন ত্রিপুরাবাসী তীব্র গরমে হাঁসফাঁস করছেন ত্রিপুরাবাসী

আগরতলা (ত্রিপুরা): গ্রীষ্মের দাবদাহে জ্বলছে আগরতলাসহ গোটা ত্রিপুরা রাজ্য। বিশেষ করে রাজধানী আগরতলার নাজেহাল অবস্থা।

দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রার পারদ ইতোমধ্যে ছুঁয়েছে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৪ থেকে ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ওঠানামা করছে।  

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে এই হাঁসফাঁস গরমের অবস্থা চলবে আরও কয়েকদিন। রাজ্যের অন্যান্য জেলাতে অল্পবিস্তর কালবৈশাখী ও হালকা বৃষ্টি দেখা গেলেও আগরতলায় এর কোনো প্রভাব নেই। এই কদিনের মধ্যে বৃষ্টি হবে বলেও আশার কথা শুনাতে পারেনি আবহাওয়া অধিদপ্তর। ফলে গরম আরও বেশি অনুভব হচ্ছে। এই অবস্থায় দুপুর বেলা লু প্রবাহিত হয়, তাই খুব জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছেন না। আর যারা বের হচ্ছেন তারা গরমের হাত থেকে বাঁচতে ডাবসহ ঠাণ্ডা পানির ওপর ভরসা করছেন।  

একদিকে করোনার জন্য এখন মানুষ ডাব খাচ্ছেন তার ওপর গরম, তাই ডাবের চাহিদা অনেক বেড়ে গেছে। এক একটি ডাব ৫০ থেকে ৬০ রুপি করে বিক্রি হচ্ছে। অথচ কিছু দিন আগে একই আকারের ডাব ৩০ থেকে ৪০ রুপি করে বিক্রি হয়েছিল।  

আগরতলার কামান চৌমুহনী এলাকার ডাব ব্যবসায়ীরা জানান, ডাবের এতো চাহিদা বেড়েছে যে গাছ মালিকরা যোগান দিতে পারছেন না। তাই আগামী দিনে এক একটি ডাব ৮০ রুপি দামে বিক্রি হলেও আশ্চর্য্য হওয়ার কিছু নেই।  

এদিকে গরমের হাত থেকে বাঁচতে দুপুর বেলা আগরতলার কলেজ লেকসহ অন্যান্য পুকুরগুলোতে কিশোর ও যুবকদের উন্মাদনা লক্ষ্য করা গেছে। তারা জানান, গরমের হাত থেকে বাঁচার এটি একটি ভালো উপায়।  

বাংলাদেশ সময়: ১৪১০ ঘণ্টা, এপ্রিল, ২০২১
এসসিএন/এমআরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa